আঙিনা

প্রবাদ প্রবচন –

১) গঙ্গায় ময়লা ফেললে
গঙ্গার মাহাত্ম্য যায় না

(নিন্দাবাদে মহত্ত্বের মহত্ব নষ্ট হয় না)

২) গোদা বাড়ি ছাদন দড়ি
এখন তুমি কার –
যখন যার কাছে থাকি
তখন আমি তার

(ধর্মাধর্ম জ্ঞানশূন্য, পরের তোষামোদ করে জীবিকা নির্বাহ করে এমন লোক)

৩) ঘন্টা বাজিয়ে দুর্গোৎসব
ইতু পুজোয় ঢাক

(যেমন কাজ, তার অনুরূপ ব্যবস্থা না করে তার বিপরীত ব্যবস্থা করা)

৪) ঘরে বাহিরে একমন
তবে হয় কৃষ্ণভজন

(অন্তরে ও বাহিরে এক হতে না পারলে প্রকৃত ঈশ্বরের আরাধনা হয় না)

৫) জলে কুমীর ডাঙায় বাঘ
যে পারে সে ভাঙে ঘাড়

(উভয় সংকট)

৬) দাও কিঞ্চিৎ
না করো বঞ্চিত

(যাচককে অধিক না পারো, যৎসামান্য দিও, একেবারে বঞ্চিত কোরো না)

৭) নাই ধন ত যায় বন

(ধন না থাকিলে কাহারও নিকট সম্মান পাওয়া যায় না)

৮) নেংটে ইঁদুর পাহাড় কাটে

(অতি ক্ষুদ্র প্রাণীর দ্বারাও অতি বৃহৎ কর্ম বা ভয়ানক অনস্ত হতে পারে)

৯) চোর সেবক চোর গাই
খল পড়শি দুষ্টু ভাই
দুষ্ট নারী, পুত্র জুয়ার
করো পরিহার

(নিজের অধীনস্থ লোক যদি কাজে ফাঁকি দেয়, দুধ দোয়ানোর সময় গাভী যদি দুধ তুলে রাখে, তাহলে তার সম্পর্কে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। খল চরিত্রের ভাই বন্ধু প্রতিবেশী, দুষ্ট চরিত্রের নারী ও জুয়ারী পুত্রের সঙ্গে ত্যাগ করতে হবে। তবেই জীবনে সুখ আসবে।)

১০) শুনহ বাণী
শ্রাবণ ভাদ্রে নেইকো পানি
দিনে জল রাতে তারা
এই দেখবে দুঃখের ধারা

(শ্রাবণ ভাদ্র মাসে যদি বৃষ্টি না হয়, বর্ষার শুরুতে যদি দিনে জল রাতে আকাশ পরিষ্কার থাকে তবে মানুষের দুঃখ দুর্দশার সীমা থাকে না)

১১) ঘর বাঁধবে ছাইবে না
ধার দিবে চাইবে না

(নির্বোধ লোক ঘর তৈরী করে, তার চাল ছাইনা; এবং টাকা ধার দিয়ে তাগাদা দেয় না)

 

Leave a Reply