আঙিনা

‘ইংরেজি টিংরেজি কিছু’

(আগের পর্বের লিঙ্ক)

গত পর্বে বলেছিলাম যে, শব্দের অর্থও দুইরকম হয়। Denotation এবং connotation. এরা দুই ‘রকমের’ অর্থ — সম্পূর্ণ আলাদা দুটো ব্যাপার কিন্তু নয়। এরা একসঙ্গেই থাকে এবং দ্বিতীয়টা প্রায়সই প্রথমটাকে পুরোপুরি পাল্টেও দেয়। Denotation হল গিয়ে একটা শব্দের আভিধানিক অর্থ। যেমন ধরুন Cheap শব্দটা। এর আভিধানিক অর্থ হল inexpensive বা সুলভ মূল্যে উপলব্ধ। কিন্তু বলুন ত, Cheap কথাটা কানে গেলে কি শুধু এটুকুই আপনার মনে আসে? উঁহু। আরও অনেক কিছু আসে। সস্তা, পাতি, ইত্যাদি। আসে না? হ্যাঁ, আসার কারণ হল শব্দটির connotations. অর্থাৎ শব্দটির সামাজিক, সাংস্কৃতিক, আবেগগত বিভিন্ন সব অনুষঙ্গ! Connotation মানে সেটাই। একটা শব্দ আপনার মনে তার dictionary meaning ছাড়াও আরও যত কিছু এনে দেয়, অর্থাৎ তার সব ধরণের associations. Cheap শব্দটা আপনার কানে গেলে আপনি তার মূল্য সুলভ সেটাও যেমনি বুঝবেন তেমনি, একইসঙ্গে, আপনার মাথায় চলে আসবে, তবে কারা সাধারণতঃ এই জিনিসগুলো কেনে, তাদের সঙ্গে আমার অর্থনৈতিক ও সামাজিক অবস্থানের পার্থক্য কতটা, যদি তারা আমার চেয়ে অনেকটাই অনগ্রসর থেকে থাকে সেসব অবস্থানের দিক থেকে তবে, জিনিসগুলো আদৌ ব্যবহারযোগ্য হবে কিনা আমার কাছে কারণ, তারা যখন afford করতে পারছে তখন জিনিসগুলোর গুণমান ত আমার standard এর হওয়ার কথা নয়, ইত্যাদি ইত্যাদি!

এবার নিন Flood শব্দটাকে। এর আভিধানিক অর্থ ‘বন্যা’, ‘প্লাবন’। Denotation পাওয়া গেল। এবার চলুন এর association গুলো, মানে connotations দেখি। অন্যভাবে বলতে গেলে, দেখা যাক শব্দটি কী কী connote করে। আমি বলি আপনি মেলান। তারপর আরও কিছু আপনার মাথায় এলে মনে মনে যোগ করুন আমার দেয়া তালিকায়। বন্যা, ভাঙা বাঁধ, বাড়ির মধ্যে জল, চৌকি/খাটের পায়ার নীচে ইঁট, জলে ভাসমান ছোট ছোট প্রাণীর মৃতদেহ, দুর্গন্ধ, আপনার বইগুলোর বারো বাজা, ত্রাণকার্য্য, রাজনীতিবিদ, দুর্নীতি, জল নামলে প্যাচপেচে কাদা, ইত্যাদি ইত্যাদি! তাহলে দেখাই যাচ্ছে connotations আসলে denotations এর চাইতে অনেক বেশি potent একটা ব্যাপার! এবার তবে আরেকবার দুটোর সংজ্ঞা দেখে নিই তারপর আপনাকে দেখাব কেমন করে connotation(s) denotation কে পুরোপুরি পালটে দিয়ে এসেছে বহুবার। 

১. Denotation: কোনো শব্দের আভিধানিক অর্থ।
২. Connotation: কোনো শব্দকে ঘিরে যত ধরণের আবেগ (স্মৃতি, অনুভূতি ইত্যাদি) ও কল্পনা রয়েছে সেই সমস্ত কিছু! মানে, প্রথমটা আক্ষরিক অর্থ এবং দ্বিতীয়টা শব্দটির মধ্যেকার আবেগ উৎপাদনকারী শক্তি।

তা কেমন করে connotation, denotation কে, অর্থাৎ dictionary meaning কে পাল্টে দেয়? হ্যাঁ, দিচ্ছি উদাহরণ। Villain মানে কী? হ্যাঁ, খলনায়ক। কিন্তু চিরকালই তাই ছিল না কিন্তু! শব্দটা সুপ্রাচীন কালে mean করত কোনো villa ‘র জমিতে কৃষিকাজ করেন এমন চাষী। পরে ‘তিনি কী’ এর চাইতে ‘তিনি কী নন’টা বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গেল জনমানসে। তিনি কী ছিলেন না তবে? তিনি মোটামুটি সম্পন্ন কৃষক হলেও তাঁর status ছিল একজন knight এর নীচে? অতি সরলীকরণ mass এর স্বাভাবিক প্রবণতা। তাই, villain হয়ে গেল ঠিক তাই তাই যা যা একজন নাইট ছিলেন না। তবে দেখি Knight শব্দের অনুষঙ্গগুলো। Knight = bravery, chivalry, politeness, religiousness, selflessness ইত্যাদি যা কিছু ভালো। অতএব যিনি Knight নন, অর্থাৎ এই বেচারা villain, তিনি এগুলোর ঠিক উল্টো বৈশিষ্ট্যগুলোর অধিকারী। বানানও পরিবর্তিত হয়ে villein হয়ে গেছিল তখন। বানান এখন আগের জায়গায় ফিরে গেছে ঠিকই কিন্তু, vilification of the ‘villain’ তদ্দিনে complete.

দেখুন তবে, শুধুমাত্র connotation -তাও নিজের নয়, Knight এর- by contrast Villain বেচারাকে villain বানিয়ে দিল! একটা নির্বিষ শব্দ negative connotation অর্জন করে পুরো negative হয়ে গেল! এই প্রক্রিয়াটিরও একটি নাম আছে। নামটি হল, pejoration. আর এর ঠিক উল্টোটার নাম amelioration. আসছে পর্বে pejoration আর amelioration, উভয় প্রক্রিয়ারই মজার মজার আরও উদাহরণ আলোচনা করা শুরু করব। এবার, কাঞ্জিক এর বাকিটাও পড়ে ফেলুন। আর, প্লিজ, প্লিজ, পেইজ ‘লাইক’ করতে ভুলবেন না।

জয় দুর্গা!

Leave a Reply